মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

পুরাকীর্তিরসংক্ষিপ্তবর্ণনা

জগদ্বন্ধু সুন্দর এর আশ্রমঃ  মহাবতারী শ্রী শ্রী প্রভু জগদ্বন্ধু সুন্দরের আবির্ভাব ২৮শে এপ্রিল ১৮৭১ বাংলা ১২৭৮ সনের ১৬ বৈশাখ রোজ শুক্রবার। মানবলীলা সংবরণ করেন ১৭ সেন্টেম্বর ১৯২১। পৈত্রিক নিবাস ফরিদপুর শহর সংলগ্ন গ্রাম গোবিন্দপুর। পিতা-শ্রী দীননাথ ন্যায়রত্ম, মাতা-শ্রীমতী বামাসুন্দরী দেবী। শ্রী শ্রী প্রভু সুন্দরের আবির্ভাব মুর্শিদাবাদ জেলার ডাহাপাড়ায়। কারণ ডাহাপাড়া পিতার কর্মস্থল ছিল। তিনি শ্রীধাম শ্রীঅঙ্গন প্রতিষ্ঠা করেন বাংলা আষাঢ় ১৩০৬  রথযাত্রা উৎসরে। শ্রীঅঙ্গনের এ জমি দান করেন ফরিদপুর গোয়ালচামটের শ্রীরামসুন্দর ও শ্রীরাম কুমারমুদি। শ্রীরাম শ্রীঅঙ্গন মহানাম প্রচারের কেন্দ্রে পরিনণত হয়। তাঁর দিব্যজীবন স্থায়িত্ব পঞ্চাশ বছর চার মাস বিশ দিন মাত্র। বিদ্যজীবনের প্রথম আঠারো বৎসর বিদ্যাভাব, দশ বৎসর কর্মজীবন, পরবর্তী ষোল বৎসর আট মাস গম্ভীরালীলা নিমগ্ন থাকেন। মানবলীলা সংবরণের পরবর্তী মাস বাংলা ১৩২৮ সনের ২ রা কার্তিক হতে শ্রীধাম অঙ্গনে দিবস-রজনী অখন্ড মহানাম কীর্তন অব্যাহত রয়েছে। তাঁর রচিত উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ -হরিকথা, চন্দ্রপাত, ত্রিকাল ইত্যাদি।
স্থানীয় স্থানের যাবার উপায়ঃ ফরিদপুর পুরাতন বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন, ফরিদপুর-ঢাকা মহাসড়কের পাশে।

দর্শনীয় স্থানের আবাসনের ব্যবস্থাঃ নতুন নির্মাণাধীন মান সম্মত ৩০ কক্ষ বিশিষ্ট ৫ তলা একটি ভক্তবাস আছে। ১৫০ জন ভক্তবাস থাকতে পারেন।
দর্শনীয় স্থানের তত্ত্বাবধায়কের যোগাযোগের ঠিকানাঃ শ্রীমৎ কান্তিবন্ধু ব্রক্ষ্ণচারী, সভাপতি, শ্রী শ্রী প্রভু জগদ্বদ্ধু সুন্দর, গোয়ালচামট, ফরিদপুর। ফোন নং- ০৬৩১-৬৪৫৫২, মোবাইল নং-০১৭১৫-০১৫৮৪১।

 

ফরিদপুর জেলার ঐতিহ্য মধ্যে কাচি তৈরি একটি অন্যতম ঐতিহ্য।কামারা বিভিন্ন ধরনের লোহা আগুনে পুরিয়ে এই কাচি তৈরি করে থাকে, এবং তারা এই কাচি তৈরি মাধ্যমে জীবিকা অর্জন করে ।প্রাচীন কাল থেকে এই জেলার মানুষ কাচি তৈরি করেছে,যার ঐতিহ্য এখনো এই জেলায় বর্তমান রয়েছে।